ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা ষষ্ঠ শ্রেণি এসাইনমেন্ট

ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা ষষ্ঠ শ্রেণি এসাইনমেন্ট

উত্তর: ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা ষষ্ঠ শ্রেণি এসাইনমেন্ট তৌহিদ একটি আরবি শব্দ। বাংলা ভাষায় একে একেশ্বরবাদ বলা হয়। আল্লাহ তায়ালাকে এক এবং অনন্য সত্তা হিসাবে বিশ্বাসকে তাওহীদ বা একেশ্বরবাদ বলা হয়।

ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা ষষ্ঠ শ্রেণি এসাইনমেন্ট

আল্লাহ তায়ালা একমাত্র স্রষ্টা, পালনকর্তা, স্থায়ী। তিনি ব্যতীত উপাসনার যোগ্য আর কেউ নেই। তিনিই একমাত্র isশ্বর। আল্লাহ তাআলার প্রতি এ জাতীয় বিশ্বাস তাওহীদ।

 

আমাদের চারপাশে সুন্দর ফুল, ফলমূল, গাছপালা, কোমলতা, প্রাণী ইত্যাদি Besides এছাড়াও নদী, খাল, পাহাড়, বন, সমুদ্র এবং মহাসাগর রয়েছে।

 

এছাড়াও অনেকগুলি বস্তু এবং প্রাণী রয়েছে যা আমরা খালি চোখে দেখতে পারি না। এর কোনটিই তৈরি করা পৃথিবীর নয়।

এগুলি স্রষ্টা ব্যতীত অস্তিত্ব লাভ করেনি। নিশ্চয়ই একজন স্রষ্টা এগুলি সৃষ্টি করেছেন। তিনি মহান isশ্বর। তিনি সবকিছু তৈরি করেছেন। তাঁর কোনও সাহায্যকারীর দরকার নেই।

 

কালিমা তায়িবা অর্থ পবিত্র শব্দ। এটিই তাওহীদ, manমান ও ইসলামের ভিত্তি।

উচ্চারণ: লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহ মুহাম্মদুর রসুলুল্লাহ।

অর্থ: আল্লাহ ব্যতীত কোন উপাস্য নেই, মুহাম্মদ (সাঃ) আল্লাহর রাসূল।

 

এই কলঙ্ককে স্বীকার না করে কেউ ইসলামে প্রবেশ করতে পারে না। এই কালি দুটি অংশ আছে।

 

প্রথম অংশটি withশ্বরের সাথে বিশ্বাস ও একতার কথা বলে।

 

দ্বিতীয় অংশটি হযরত মুহাম্মদ (সা।) – এর প্রতি .মানের কথা বলেছে।

 

তৌহিদের প্রতি বিশ্বাসের জন্য বিশুদ্ধ হৃদয় প্রয়োজন। অর্থাৎ প্রথমত, সমস্ত ধরণের ভুল এবং ভ্রান্ত বিশ্বাসকে হৃদয় থেকে সরিয়ে ফেলতে হবে। এটিই ‘লা-ইলাহা’ করে।

 

তাহলে আল্লাহ তায়ালার প্রতি ‘মান ‘ইল্লাল্লাহু’ প্রতিষ্ঠিত হবে।

ইসলাম নৈতিক শিক্ষা ষষ্ঠ শ্রেণি এসাইনমেন্ট

চারপাশে বিভিন্ন ধরণের রেফারেন্স সহ আল্লাহর একত্ববাদ সম্পর্কে রিপোর্ট করুন

কালিমা শাহাদাত সাক্ষ্যের কথা।

অর্থাৎ এই কালিমার দ্বারা মানের সাক্ষ্য দেওয়া হয়। এই কালেমার বাক্যটি আল্লাহ তায়ালার একত্ব এবং মুহাম্মদ (সাঃ) এর নবুওয়াতের সাক্ষ্য দেয়।

 

উচ্চারণ: আশহাদু আল্লাহ-ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহদাহু লা-শারিকালাহু ওয়া আশহাদু আন্না মুহাম্মাদান আবদুহু ওয়া রাসুলুহু।

 

অর্থ: আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি যে আল্লাহ ব্যতীত কোন উপাস্য নেই। তিনি অবিবাহিত, তাঁর কোনও অংশীদার নেই। আমি আরও সাক্ষ্য দিচ্ছি যে নিশ্চয়ই মুহাম্মদ (সাঃ) তাঁর ()শ্বরের) বান্দা ও রসূল।

 

এই দুটি ভাগে বিভক্ত।

 

এর প্রথম অংশটি তাওহীদ বা একেশ্বরবাদের সাক্ষ্য দেয়।

 

এবং দ্বিতীয় অংশে মুহাম্মদ (সাঃ) এর বাণী স্বীকৃত।

 

কালিমা শাহাদাতের মাধ্যমে আমরা এই দুটি জিনিস করতে পারি।

এছাড়াও, আমরা সর্বশক্তিমান Godশ্বর এবং হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের প্রতি আমাদের বিশ্বাসের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে পারি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close